রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে টাইগারদের ৬ রানে জয়

news paper

ওমর ফারুক

প্রকাশিত: ১৬-৯-২০২৩ দুপুর ১:৩২

15Views

এশিয়া কাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে টান-টান উত্তেজনায় ঠাঁসা ম্যাচে ভারতকে ৬ রানে হারিয়ে এশিয়া কাপের মিশন শেষ করল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ছুড়ে দেওয়া ২৬৫ রানের জবাবে ব্যাট করতে নামা ভারতকে কলম্বোয় ২৫৯ রানে অলআউট করে ঐতিহাসিক জয় ছিনিয়ে নিয়েছে বাংলাদেশ। ২০১২ সালের পর এশিয়া কাপে ভারতের বিপক্ষে জয় পেল টাইগাররা।
 
এদিন টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৬৫ রান তোলে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন দাস (০) ও তানজিদ হাসান তামিমকে (১২ বলে ১৩) দ্রুতই ফেরায় ভারত। ব্যর্থ হয়েছেন টুর্নামেন্টে প্রথম খেলতে নামা এনামুল হক বিজয়ও (৪)।আগের ৩ ম্যাচে ওপেন করা মিরাজ আজ নেমেছেন ৫ নম্বরে। দুইবার জীবন পেয়েও করতে পারেননি ১৩ রানের বেশি। ৫৯ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে বাংলাদেশ।
 
সেখান থেকে হৃদয়কে নিয়ে ১০১ রানের জুটি অধিনায়ক সাকিবের। ৮৫ বলে ৬ চার ৩ ছক্কায় ৮০ রান করা সাকিব আউট হলে ভাঙে জুটি।ব্যর্থতার ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন শামীম হোসেন। তবে হৃদয়কে ভালো সঙ্গ দিচ্ছিলেন নাসুম। যদিও এ দফায় ৩২ রানের জুটি ভেঙেছে হৃদয় আউট হলে। ৭৭ বলে ফিফটি ছুঁয়ে ৮১ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৫৪ রানে থামেন।হৃদয় ফিরলেও শেখ মেহেদীকে নিয়ে ৪৫ রানের জুটি গড়েন নাসুম। নিজে ছিলেন ফিফটির পথে। তবে ৪৮তম ওভারে আউট হন ৪৫ বলে ৬ চার ১ ছক্কায় ৪৪ রান করে।
 
শেখ মেহেদী শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ২৩ বলে ২৯ রানে। তানজিম হাসান সাকিব খেলেন ৮ বলে অপরাজিত ১৪ রানের ইনিংস।ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন শার্দুল ঠাকুর। ২ টি শিকার মোহাম্মদ শামির।লক্ষ্য তাড়ায় নামা ভারতকে শুরুতেই বিপাকে ফেলেন বাংলাদেশের অভিষিক্ত পেসার তানজিম সাকিব। ইনিংসের দ্বিতীয় বলে খালি হাতে ফেরান ভারত কাপ্তান রোহিত শর্মাকে। নিজের দ্বিতীয় ওভারে তুলে নেন তিলক ভার্মাকে (৯ বলে ৫ রান)।
 
তবে সাকিবকে সামলে দলকে পথ দেখানোর চেষ্টা করেন লোকেশ রাহুল ও শুবমান গিল। দুজনের ৫৭ রানের জুটি ভাঙেন শেখ মেহেদী। ১৯ রান করে শামীম হোসেনকে ক্যাচ দেন রাহুল। ক্রিজে এসে বেশিক্ষণ টিকেননি ইশান কিশানও (৫)।সুরিয়া কুমার যাদবকে ২৬ রানে বোল্ড করে বাংলাদেশ শিবিরে উদযাপনের উপলক্ষ্য এনে দেন সাকিব। ভারত পরিণত হয় ৫ উইকেটে ১৩৯ রানে।তবে এক পাশ আগলে রেখে বাংলাদেশের গলার কাটা হন গিল। ৬১ বলে ছুঁয়েছেন ফিফটি। মাঝে রবীন্দ্র জাদেজাকে (৭) বোল্ড করেন মুস্তাফিজ। যদিও নিজের সেঞ্চুরি তুলে জয়ের পথে লড়াইটা ঠিক চালিয়েছেন গিল। সেঞ্চুরিতে লেগেছে ১১৭ বল। সেঞ্চুরি করার পর বোলারদের উপর চড়াও হতে থাকা গিলকে ফেরান মাহেদী হাসান। ১৩৩ বলে গিল করেন ১২১ রান।
 
শুভমান গিল ফিরে গেলেও ৮ম উইকেট জুটিতে শার্দুল ঠাকুর ও অক্ষর কুমার কার্যকরী একটি জুটি গড়ে ভারতের জয়ের পথ সুগম করতে থাকে। শেষ ২ ওভারে যখন ১৭ রান দরকার তখন সাকিব বল তুলে দেন মুস্তাফিজের হাতে এবং প্রথম বলেই শার্দুল ঠাকুরকে ফেরানোর পর ৪র্থ বলে ভয়ঙ্কর অক্ষর প্যাটেলকেও আউট করেন মুস্তাফিজ। ৪৯ তম ওভারে মাত্র ৫ রান দেন মুস্তাফিজ।শেষ ওভারে যখন ১২ রান প্রয়োজন তখন তানজিম সাকিব প্রথম ৩টা বলই ডটবল করেন। পরের বলে সাকিবকে বাউন্ডারি মারেন শামি। তবে ৫ম বলে ২ রান নিতে গিয়ে রান আউট হয়ে গেলে ২৫৯ রানেই থেমে যায় ভারত।
 
বাংলাদেশের হয়ে মুস্তাফিজ ৫০ রানে ৩ উইকেট এবং অভিষিক্ত তানজিম সাকিব ও মাহেদী হাসান ২টি করে উইকেট পান। ব্যাট হাতে ৮০ রান ও বল হাতে ১ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন সাকিব।আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর (রোববার) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচে মাঠে নামবে ভারত

আরও পড়ুন