ঢাকা বৃহষ্পতিবার, ৫ আগস্ট, ২০২১

রাত পোহালেই কঠোর লকডাউন : ঢাকামুখী জনস্রোত


নিজস্ব প্রতিবেদক photo নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: 1 সপ্তাহ আগে

রাত পোহালেই কঠোর লকডাউন। তাই ঈদের পরদিনই ঢাকায় ফিরছে মানুষ। বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুট এবং দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ ছিল চোখে পড়ার মতো। অনেকে আবার ঢাকাও ছেড়েছেন। ভিড় এড়াতেই কোরবানির একদিন পর যাচ্ছেন বলে জানান যাত্রীরা।

ঈদের আমেজ শেষ না হতেই ফিরে এসেছেন যান্ত্রিক নগরে। ব্যাগ-বোঁচকা-বাকশো-পেটরা হাতে জীবিকার টানে তড়িঘড়ি করে ফিরেছেন চেনা পথে। কারো কারো অফিস খোলা থাকবে লকডাউনেও, তাই তাড়া ছিল আনন্দের সীমায় লাগাম টানার। কেউ কেউ ভিড় এড়িয়ে শান্তিতে বাড়ি ফিরতে চেয়েছিলেন। তাইতো বেছে নিয়েছেন ঈদের দ্বিতীয় দিনকে। তবে এমন যাত্রীর সংখ্যা খুব বেশি ছিল না।

আসা-যাওয়ার এই স্রোত সামলাতে প্রস্তুত বাংলাবাজার-শিমুলিয়া ঘাট। ১৫টি ফেরি টানা চলছে এপার-ওপার। কমতি নেই লঞ্চের সংখ্যায়ও। তাই আনাগোনা বাড়লেও বেগ পেতে হচ্ছে না যাত্রীদের। সূর্যের তাপ বাড়তে না বাড়তেই ভিড় কিছুটা বেড়েছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে। এখানেও চাপ সামাল দিচ্ছে ১৬টি ফেরি। দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের প্রধান বাহন লঞ্চেও ছিল যাত্রীদের চাপ।

এদিকে গতবারের চেয়ে এই লকডাউন কঠিন হবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। মাঠে থাকবে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনী ফরহাদ হোসেন বলেন, লকডাউন শিথিল হবে না। গতবারের চেয়ে কঠিন হবে এবার। লকডাউন চলাকালে বিধিনিষেধ নিশ্চিত করতে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে।

তিনি বলেন, এই লকডাউনে অফিস-আদালত, গার্মেন্টস-কলকারখানা ও রপ্তানিমুখী সবকিছুই বন্ধ থাকবে। কঠোর বিধিনিষেধ থাকবে আগের মতোই। আইন অমান‌্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব‌্যবস্থা নেবে আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। করোনারোধে স্বাস্থবিধি মেনে চলাসহ অপ্রয়োজনে বাসা বাড়ি থেকে বের না হওয়ার জন‌্য জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে ব্যবসা বাণিজ্য, কোরবানি, মানুষের আসা যাওয়া নির্বিঘ্নে করতে চলমান লকডাউন ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ শিথিল করে সরকার। ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত আবারও শুরু হচ্ছে কঠোর লকডাউন। ফলে ২৩ জুলাই সকাল ৬টার মধ্যে নিজ নিজ গন্তব্যস্থলে ফিরতে হবে। অন্যথায় যে যেখানে থাকবেন সেখানে আটকা পড়বেন। ঈদের পর এই লকডাউনে বিধিনিষেধ কড়াকড়িভাবে প্রতিপালন করা হবে।

গত ১৩ জুলাই করোনাভাইরাস সংক্রমণের পরিস্থিতি বিবেচনায় গণপরিবহন, অফিস, আদালত, দোকান প্রায় সবকিছু বন্ধ রাখাসহ ২৩টি নির্দেশনা দিয়ে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

জামান / জামান